আর কতদিন অন্যের কাছে কাজ করবো?আমি নীজের ব্যাবসা করতে চাই।

Screenshot_2020-01-06-00-08-38     উউফ….., আমি আর পারছি না সহ্য করতে এত চাপ। ঘুরে বেড়িয়ে যদি ইনকাম করতে পারতাম তাহলে কতই না ভালো  হত।  আর কত দিন….. আর কত দিন এভাবে চলবে, আর কত দিন? এত কাজ করছি, তবুও সেই নানান ধরনের কথাই শুনতে হচ্ছে মালিকের কাছে, ছিঃ..।

পাচ্ছিতো সেই মাসের শেষে এই কটা টাকা মাইনে, এত কাজ করে মাইনের থেকে খারাপ ব্যবহার টায় পাচ্ছি বেশী।

আমার বয়স যখন 18, বাবা বলেছিলেন ভালো চাকরি করে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হয়ও।    এখন বয়স আমার 28+, ভালো চাকরিতো করছি বাবা, কিন্তু ভালো মাইনে পাচ্ছি কোথায়?বয়সটা তো দিন দিন বেড়েই চলেছে, মাইনে বাড়ছে না কেনো বাবা? 

8 – 10 ঘন্টা লোকের কাছে রক্ত জল করে পরিশ্রম করছি, সেই মাইনে সংসারের টুকিটাকি খরচাতেই ফুরুত হয়ে যায়। দু পয়সা জমিয়ে নীজের ভালো ব্যাবসা দাঁড় করাবো সেটার ও পর্যন্ত উপায় নেইকো।    শখের কথা  না হয় বাদই দিলাম।  

স্কুল, কলেজের এমনকি পারার সমবয়সী বন্ধুরা বেশ মোটা টাকা ইনকাম করছে, বাড়ি  গাড়ি  শখ  স্বপ্ন সমস্ত কিছু পূরণ করছে কীভাবে বাবা?   

বাবা: ওরা সকলেই  ” SAFE SHOP ”  ইন্ডাস্ট্রিতে  কাজ করছে, সুতরাং এখান থেকে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করা স্বাভাবিক।  

ছেলে:  বাবা এই  ” SAFE SHOP ”  ইন্ডাস্ট্রি আবার কি?

বাবা: শোনো তবে, এই ইন্ডাস্ট্রি দেশের বিভিন্ন নামি দামী ব্রান্ডেড কোম্পানির  প্রডাক্ট ডাইরেক্ট কাষ্টমারদের হাতে  পৌঁছে দেয়ার কাজ করে থাকে।  P41FXT_20200106024113027

সুতরাং এখানে পাইকারি বিক্রেতা এবং খুচরো বিক্রেতার   কোনো ঝামেলায় থাকে না।    তাই বলে এর জন্য কোনো দোকান খোলার বা প্রডাক্ট সঙ্গে করে নিয়ে পড়ায় পাড়ায় ঘুরে বিক্রি করার ব্যাপার না।   

     শুধু প্রয়োজন, দুটো প্রধান কাজ।  ব্যাস তাঁরপর তোমারও মোটা টাকা ইনকাম এবং শেষে বসে বসে ইনকাম। 

pixlr_20200106225900679

     1. প্রথমে নীজে  4– 6 হাজারের যেকোনো একটা প্রডাক্ট কিনে নীজের নামে একটা   ID  চালু করা। 

2. এবং দ্বিতীয়ত এই একই ফরমুলাই তোমার পরিচিত  2 জন কোনো ব্যাক্তিকে বলো প্রয়োজনীয় কোনো প্রডাক্ট                       ” SAFE  SHOP ” থেকে কিনতে।   

   এবং তোমার পরিচিত সেই 2 জন আরও 2 জনকে কিনতে বলবে। সেই 2 জন আরও 2 জনকে….. 

   এই ভাবে তোমার টিম বা গ্রুপ বাড়তেই থাকবে  এবং তোমার গ্রুপে যত প্রডাক্ট সেল বা বিক্রি হবে ততই তোমার ইনকাম বাড়তেই থাকবে, এরপর তোমাকে  আর পরিশ্রম করা লাগবে না।

   এই কাজগুলো যারা করে থাকেন তাঁরা  প্রডাক্ট ভিত্তিক ভালো  অর্থ উপার্জন করে থাকেন।

ছেলে: আমাকে এখুনি 4 হাজার টাকা দাওনা বাবা                “SAFE SHOP ”  থেকে একটা ID খুুুলে আসি।

    শিবু আর আব্দুল্লাহ্কেও সাথে নিয়ে যাচ্ছি, ওরাও ID খুলবে।।।।  

 বন্ধুরা,  আপনি যদি ফ্যামিলি কিংবা বন্ধুদের সাথে ছুটি এনজয় করেন তবুও আপনার টিম বা গ্রুপ কাজ করবে এবং আপনার ইনকাম হতে থাকবে। 

  আরও জানতে YouTube–এ  SAFE  SHOP  লিখে সার্চ করুন, ওখানে সকল খুঁটিনাটি বিষয় পেয়ে যাবেন  আপনারা।

 তো বন্ধুরা,  আপনারা যদি  SAFE SHOP –এ কাজ করতে চান তাও আবার কোনো রকম পরিশ্রম না করে, নীজের মেন কাজটা বজায় রেখে , তবে সত্তর আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন নীচের কমেন্ট বক্সে গিয়ে কমেন্ট করুন।

 আমরা সবসময় আপনার পাশে রয়েছি।        

Screenshot_2020-01-06-00-17-46_20200106025131734

 

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: